Home » পরিচিতি » দারুল ইহ্সানের উদ্দেশ্য

দারুল ইহ্সানের উদ্দেশ্য

ড. সৈয়দ আলী আশ্রাফ

ক) এমন একটি শিক্ষায়তন গড়ে তোলা যেখানে ছাত্র-ছাত্রীরা সত্যিকারের মানুষ হিসাবে গড়ে উঠবে এবং এমনভাবে শিক্ষালাভ করবে যেন তারা ঐহিক, পারলৌকিক, প্রাকৃতিক এবং সামাজিক জ্ঞান-বিজ্ঞানকে ইসলামী দৃষ্টিকোণ থেকে দেখবার, বাছ-বিচার এবং গ্রহণ-বর্জন করার ক্ষমতা অর্জন করে।

খ) এমন ধরনের শিক্ষক তৈরী করা, যে শিক্ষক সাহিত্য, শিল্পকলা, সমাজবিজ্ঞান, বিজ্ঞান এবং অন্যান্য সমস্ত জ্ঞান-বিজ্ঞানকে ইসলামী দৃষ্টিকোণ থেকে আয়ত্ত করার এবং ছাত্র-ছাত্রীদের সেই দৃষ্টিকোণ থেকে শিক্ষাদান করার পদ্ধতি অর্জন করবেন।

গ) শিক্ষকদের এবং ছাত্র-ছাত্রীদের এই নতুনভাবে জ্ঞান অর্জন পদ্ধতি আয়ত্ত করার জন্য এমন একটি গবেষণাকেন্দ্র স্থাপন করা, যে কেন্দ্রে আধুনিক জ্ঞান-বিজ্ঞানের ভিত্তিমূলে যে সমস্ত ধর্মবিরোধী (ংবপঁষধৎ) ভাবধারা রয়েছে তার স্থলে ইসলামী ভাবধারা প্রতিষ্ঠা করার কাজ চালাবে এবং সেই ভাবধারার ভিত্তিতে শিক্ষাক্রম, পাঠ্যপুস্তক এবং পাঠ্যসংক্রান্ত অন্যান্য যাবতীয় বস্তু তৈরি করার পূর্ণ ব্যবস্থা থাকবে।

ঘ) এ সমস্ত জ্ঞানলাভের উদ্দেশ্যে মানুষকে সে পথে পরিচালিত করা যে পথ অনুসরণ করে মানুষ আল্লাহ্ তা’আলার খলীফা হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করতে পারে। সেই যোগ্যতা অর্জন করতে হলে প্রথম এবং বিশেষ প্রয়োজন হচ্ছে নিয়তের বিশুদ্ধতা অর্থাৎ আল্লাহ্ ছাড়া অন্য কারও জন্য কিছু করার খেয়াল না করা এবং দ্বিতীয় প্রয়োজন চারিত্রিক পবিত্রতা যাকে কুরআন শরীফে নফস্রে ‘তায্কিয়া’ বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে। দারুল ইহ্সানের বিশেষ উদ্দেশ্য হচ্ছে সেই নিয়তের বিশুদ্ধতা অর্জন করার, তায্কিয়া-এ-নফ্স্ হাসিল করার এবং খলীফা হওয়ার উপযোগিতা অর্জন করার পদ্ধতি শিক্ষা দেওয়া।